আসামী খালাস সম্পকে আপনি কতটুকু জানেন ???


আসামী খালাসের বিধান রয়েছে ফৌজদারি কার্যবিধির ২৪৫(১), ২৪৭, ২৪৮, ২৬৫ এইচ, ২৬৫ কে, ২৪৫(৬) ও ৪৯৪ বি ধারায় তা হল-
২৪৫(১) ধারা- কোন মামলায় সাক্ষ্য প্রমাণ গ্রহণের পর আদালত যদি আসামীকে নির্দোষ বলে সাব্যস্ত করেন তবে আদালত কারন লিপিবদ্ধ করে আসামেিক খালাস দিবেন।
২৪৭ ধারা- ফরিয়াদীর নালিশক্রমে সমন জারির পর পরবর্তী শুনানীর তারিখে ফরিয়াদী হাজির না হলে (যৌক্তিক সময় পর্যন্ত দেখা উচিত) ম্যাজিষ্ট্রেট আসামীকে খালাস দিতে পারেন।
২৪৮ ধারা- কোন মামলায় চূড়ান্ত আদেশ হওয়ার পূর্বে ফরিয়াদী যদি ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট নালিশ প্রত্যাহারের আবেদন দেয় এবং ম্যাজিষ্ট্রেট যদি মনে করেন আবেদন যথার্থ তবে তিনি আবেদন গ্রহণ করবেন এবং আসামীকে খালাস দিবেন।
২৬৫(এইচ) ধারা- দায়রা আদালত সাক্ষ্য-প্রমাণ গ্রহণের পর যদি আসামীকে নির্দোষ বলে সাব্যস্ত করেন তবে কারণ লিপিবদ্ধ করে আসামীকে খালাস দিবেন।
২৬৫(কে) ধারা- দায়রা আদালত সাক্ষ্য-প্রমাণ গ্রহণের পর যদি আসামীকে দোষী বলে সাব্যস্ত করেন তবে কারণ লিপিবদ্ধ করে আসামীকে খালাস দিবেন।
৩৪৫(৬) ধারা- আপোষযোগ্য কোন মামলায় বাদী ও বিবাদীর মধ্যে আপোষ-মিমাংশা হলে আদালত মামলাটি আপোষমূলে নিস্পত্তি করবেন এবং আসামীকে খালাস দিবেন।
৪৯৪(বি)- পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আদালতের অনুমতি নিয়ো কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রত্যাহার করতে পারবেন এবং এরূপ প্রত্যাহার যদি চার্জ গঠননের পরে করা হয় তবে আসামী খালাস পাবে।
(ভালো লাগলে বলবেন এবং বন্ধুদের জানিয়ে দিতে শেয়ার করুন।লাইক,কমেন্ট করলে আগ্রহ বা ভালো সম্পর্কের সৃষ্টি হয় মূলত ভালোই লাগে)

Advertisements

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s